August 8, 2020

অমর্ত্য সেনের আইডিয়া অব জাস্টিসে অ্যাডাম স্মিথ সম্পর্কে লিখতে গিয়ে লিখেছিলেন, পৃথিবী এই অর্থনীতিবিদকে ভুল করে সবচেয়ে ভুল বুঝেছে। খেয়াল করবেন “ভুল করে ভুল বোঝা” অংশটিকে।

একজন প্রতিভাবান মানুষকে বুঝতে ভুল করাটা সেই সমাজের দায়। জীবনানন্দ দাশ যখন বরিশালের নদীর তীরে একা একটু হাঁটতে যেতেন তখন নাকি ছেলেপিলেরা ল্যেংচে ল্যেংচে হেঁটে উনাকে ভ্যাঙ্গাতো, উনার পিছনে নাকি কুকুরও লেলিয়ে দিতো। কি মর্মান্তিক। একজন কবির এই আচরণ পাওয়ার পরে কেমন লাগতে পারে, ভাবুন তো?

কয়েকদিন আগে গৌতম দাশ দার সাথে আলাপে বলছিলাম ফরহাদ মজহার বাংলাদেশে এমন একজন “ভুল করে ভুল বোঝা” মানুষ। এই মানুষটা একইসাথে যারা নিজেকে প্রগতিশীল মনে করেন তাঁদেরও শত্রু আবার এই প্রগতিশীল যাদের প্রতিক্রিয়াশীল বলে ট্যাগ দেয় তাঁদেরও শত্রু। উনার শত্রুভাগ্য ইর্ষনীয়।

এই প্রতিভাবান একা, নিঃসঙ্গ ও দ্রোহী মানুষটার জন্য আমার খুব কষ্ট হয়। আধু্নিকতা/অনাধুনিকতার বিভাজন ভেঙে যেই নতুনকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছেন ফরহাদ মজহার, সেই চেষ্টা বাঙলায় এর আগে কেউ করেনি।

ফরহাদ মজহারের ক্রিটিক নিশ্চয় করবেন। সেটা জরুরীও। শুধু আমাদের জাতীয় চিন্তার বিকাশের কথা বিবেচনা করলেও সেটা জরুরী। আমি খুব খুশী হতাম যদি দেখতাম ফরহাদ মজহারের সাথে চিন্তায় সমানে সমানে কেউ টক্কর দিচ্ছেন, চ্যালেইঞ্জ করছেন। এতে আমাদের সবার লাভ হতো, এমনকি ফরহাদ মজহারের চিন্তাও আরো পরিচ্ছন্ন হবার সুযোগ থাকতো। সেটা হয়না। যা হয় সেটা হচ্ছে অন্ধ বিদ্বেষ। এই বিদ্বেষের কোন মূল্য যেই, কিন্তু ফরহাদ মজহার যেই চিন্তার সুত্র ধরিয়ে দিয়ে যাচ্ছেন তরুণদের কাছে সেটা অমূল্য এবং সেই চিন্তা দীর্ঘদিন বাঙালি মননকে আচ্ছন্ন করে রাখবে সেটা নিদ্বিধায় বলা যায়।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Add comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *