Bangladeshi Hindus should think twice before supporting India’s fascist Hindutwabad

This video clip has been collected from Facebook. The speaker is a Bangladeshi Hindu youth. I have attached the transcription of what the youth says in this video.

“Jai Shri Ram, Bandemataram.

I have a message for Mamata Banerjee, the chief minister of West Bengal. Please flee India. It’s not that late as yet. Just flee the country. Every statement that you issue shows that you are an anti-national. You have to leave India immediately. I am sending this message to you although I am a Bangladeshi.

We the Bangladeshi Hindus will not tolerate if Hindus in India face humiliation. I repeat, your every statement proves that you are a rioter and an anti-national. You do not consider Lord Ram an incarnation of God. You cannot chant in praise of Lord Ram. What is your problem? Are you Hindu, really? It seems you are doing all this in the interest of your (Muslim) vote bank.

If by any mistake people end up electing you as the Prime Minister of India, your term will not stretch longer than two years. A fellow Hindu will appear to shoot you dead before you complete your term as the PM.

I feel to attack you using most abusive words. We the Hindus live in abject miseries in Bangladesh. Our lives are completely dependent on Hindustan where, we hope, the rule of Hindutva will return. That rule of Lord Ram in Hindustan will help the Hindus in Bangladesh live in peace.

You are an anti-national. I condemn a Hindu like you. You have brought shame to Hinduism. I feel ashamed to introduce myself as a Hindu because of you. However, please remember that chanting in praise of Lord Ram (Jai Shri Ram) will continue all across India. No power can stop this chanting. You have arrested three Hindus for chanting “Jai Shri Ram”. All Hindus in India will raise this slogan of “Jai Shri Ram”. If you have any problem with this, you should prepare to die. Jai Shri Ram. Bandemataram. I am Sumon Basu, from Bangladesh.”

Hindus in Bangladesh may feel persecuted and unsafe in Bangladesh. Perhaps, I belong to a privileged class in Bangladesh and enjoy a certain level of social security. Yet, I have been a victim of discrimination in Bangladesh in some ways for being a Hindu. But, I can never think of supporting the establishment of Hindutva in India in my fight for the rights as a citizen in Bangladesh. We have failed to build an ideal state or nation. So, our citizenship and equal rights are being denied to us in many cases. Secularism, democracy etc. indeed feature in our Constitution. But, the rights of the citizens will not be ensured until Bangladesh turns into a modern state.

India is in the grip of a fascist Hindutvabadi politics now. It is better for Bangladeshi Hindus to stay away from India’s Hintutvabadi politics. Otherwise, Hindus in Bangladesh will face a new type of crisis that they have never seen before.

The anti-fascist forces of the subcontinent are set to engage in a battle with the fascist Hindutvabad of Modi-Shah. I hope the Hindus of Bangladesh will utilise their wisdom before choosing one of the two sides.

Click here to read the original Facebook post

এই ভিডিওটি ফেইসবুক থেকে সংগ্রহ করা। একজন বাংলাদেশী হিন্দু যুবক কথাগুলো বলছে। আমি পাঠকদের জন্য যুবকের বাংলা বক্তব্যের ট্রান্সক্রিপ্ট করে দিচ্ছি।

“জয় শ্রীরাম, বন্দে মাতরম।

আমি মমতা ব্যানার্জি বঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তাকে একটা মেসেজ দিতে চাই। সময় থাকতে ভারত ছেড়ে পালিয়ে যান। সময় থাকতে ভারত ছেড়ে পালিয়ে যান। আপনি যে একটা দেশদ্রোহী তা আপনার প্রতিটা কথায় প্রমাণ পাই। আর বেশি দিন দেরি নয়, বেশি দিন দেরি নয়, আপনাকে ভারত ছাড়াই লাগবে। আমি একজন বাংলাদেশী, আমি আপনাকে মেসেজ দিচ্ছি আপনার ভারত ছাড়া লাগবে।

হিন্দুস্থানে যদি হিন্দুদের অপমান করা হয় আমরা বাংলাদেশি হিন্দুরাও মেনে নিবো না। শুধু এটাই শেষ কথা নয় আপনি যে একটা দেশদ্রোহী আপনি যে একটা দাঙ্গাবাজ তার প্রমাণ আপনার প্রতিটা কথায়। রাম অবতারের জয়ের ধ্বনি দিতে পারবেননা। রামের নামে নারা লাগাতে পারবেন না। কিসের এলার্জী আপনার এতে? কিসের এলার্জী? আপনি হিন্দু? আদৌ হিন্দু? আর যদি ভোট ব্যাংকের জন্য করে থাকেন তাহলে এটা মনে রাখবেন যদি কখনো ভুলবশত আপনি পাশ করেন, আপনি যদি ফের ইন্ডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হন, সর্বোচ্চ দুই বছর মেয়াদ আপনার, দুই বছর মেয়াদ। আপনাকে গুলি করে মারবে আপনার জাত ভাই।

আপনাকে তো গালি করতে মনে চায় যে, আমরা বাংলাদেশী হিন্দুরা কতটা কষ্টে আছি সেটা কারো বোঝানোর ক্ষমতা নেই আমরা কতটা কষ্টে আছি। আমরা একমাত্র ভরসায় বেঁচে আছি হিন্দুস্থানের। যে হিন্দুস্থানে আবার হিন্দুত্ব আসবে। আবার রামরাজ্য আসবে। যখন আমরা শান্তিতে বাঁচতে পারবো।

আর আপনি দেশদ্রোহী, ধিক্কার জানাই আপনার মত হিন্দুকে ধিক্কার জানাই। ধিক্কার। আপনি তো আদৌ হিন্দু না। আপনাকে হিন্দু বলাই বাহুল্য। আপনি হিন্দুই নন। ছিঃ ছিঃ। নিজেকে হিন্দু বলে পরিচয় দিতে ঘৃণা হয় আপনার জন্য। তবে এটা মনে রাখবেন ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি উঠেছে উঠবে এবং আজীবন উঠবে। কারো বাপের ক্ষমতা নেই জোরপূর্বক কারো মুখ বন্ধ করার। কারো বাপের ক্ষমতা নেই। তিনজনকে জেলে ধরেছেন, কতজনকে ধরবেন আপনি? সকল ভারতবাসী ‘জয় শ্রীরাম’ নারা লাগাবে। আর আপনার যদি এলার্জী থাকে সেই এলার্জীতে আপনি মারা যাবেন। জয় শ্রীরাম, বন্দে মাতরম।

বাংলাদেশ থেকে সুমন বসু।”

বাংলাদেশের হিন্দুরা নিজেদের বঞ্চিত নির্যাতিত নিরাপত্তাহীন বলে মনে করতেই পারে। আমি নিজেও ব্যক্তিগতভাবে যতই সুবিধাপ্রাপ্ত হইনা কেন, সমাজের যে স্তরেই অবস্থান করিনা কেন, আমাকেও আমার হিন্দু নাম ও পরিচয়ের জন্য অগ্রহণযোগ্য আচরণের শিকার হতে হয়েছে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে ভারত রাষ্ট্রে হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করে বাংলাদেশে আমার নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। একটা আধুনিক নাগরিক অধিকার ভিত্তিক বাংলাদেশ রাষ্ট্র গঠনের ব্যর্থতা থেকেই আমাদের নাগরিক অধিকার সম অধিকার নিশ্চিত করা যায়না। আপনি সংবিধানে গণতন্ত্র, ধর্ম নিরপেক্ষতা যাই ঢুকান না কেন ততদিন তা নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করবে না যতদিন বাংলাদেশকে একটা আধুনিক রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে না তোলা যাবে।

ভারতে ফ্যাসিস্ট হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির উত্থান হয়েছে। সেই রাজনীতির সাথে বাংলাদেশের হিন্দুরা যত দূরত্ব রক্ষা করতে পারে ততই মঙ্গল। নয়তো বাংলাদেশে হিন্দুরা নিজেদের নির্বুদ্ধিতার জন্য এমন একটা সংকটে পতিত হবে যেই সংকটে তারা এর আগে কখনো পড়েনি।

মোদীর ফ্যাসিট হিন্দুত্ববাদের সাথে এই উপমহাদেশের ফ্যাসিবিরোধী শক্তির একটা লড়াই আসন্ন। বাংলাদেশের হিন্দুরা আশা করি সঠিক পক্ষ বেছে নিতে ভুল করবে না।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Share

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Feeling social? comment with facebook here!

Subscribe to
Newsletter