June 7, 2020

The speaker in this video clip is Sadhguru Jaggi Vasudev. He is an Indian yogi, super-naturalist and author. Many also accuse him of propagating pseudoscience and anti-scientific mentality. He happens to be the founder of Isha Foundation, a so-called non-religious organisation. He was awarded Padma Vibhushana by the Indian government in 2017 for his contribution to the field of spirituality. As expected, Sadhguru is very close to Narendra Modi.

In this video clip Sadhguru is found talking to Bollywood star Kangana Ranaut. Many people watched this interview live. Later millions of people across the world viewed the recorded video via social media platforms like Facebook and YouTube. In a video clip released on Facebook the two are found talking on what India should do with the refugees or immigrants entering India. This video clip has kicked up a storm as soon as it appeared on social media.

In the video clip, Sadhguru is clearly heard saying: “People are going across the porous border. We need to something about that. We are ready to make Bangladesh into an (Indian) Union Territory and make it a part of this country. Then people can go wherever they want. If you talk about inclusiveness, that’s the way to include. Isn’t it? People should not slip into my house from the back door and say ‘include me’.”

In Bangladesh, we have a government which is subservient to India. It was formed after the ruling party grabbed power through a massively rigged general election. The spineless government stays on in power at the mercy of New Delhi. So, in the Indian social media, and even in the Parliament, they are able to make such humiliating comments targeting the sovereignty of Bangladesh. Awami League wants to stay on in power by hook or by crook. The party is responsible for such humiliation of Bangladesh and our national pride. Sadhguru is just echoing the view of the South Block in New Delhi. Several BJP and other Hindutwabadee leaders said in the past how they cherished the dream to merge Bangladesh into India.

To maintain the sovereignty of Bangladesh, we must defeat the Awami fascism. Otherwise, we will not be able to save our beloved nation.

Click here to read the original Facebook post

এই ক্লিপে যিনি কথা বলছেন তিনি সদ্গুরু জাগ্গি বাসুদেব। তিনি একজন ভারতীয় যোগী, অতীন্দ্রিয়বাদী এবং লেখক। তিনি ইশা ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা । আধ্যাত্মিকতার ক্ষেত্রে তাঁর অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৭ সালে ভারত সরকার তাঁকে পদ্মবিভূষণ পুরস্কার প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও অতি ঘনিষ্ঠ ও শ্রদ্ধাভাজন তিনি।

এই ভিডিওতে তিনি বলিউডের অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌতের সাথে কথা বলেছেন। এই আলাপ বহু লোক সরাসরি লাইভ দেখছেন– এবং রেকর্ড করা অবস্থায় ফেসবুক, ইউটিউবের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায়ও দেশ-বিদেশের কোটি কোটি মানুষ দেখেছেন।। ফেসবুকে রিলিজ করা তাদের সাম্প্রতিক একটি সংলাপে দুজনে কথা বলেছেন বাংলাদেশ থেকে আসা শরণার্থীদের নিয়ে ভারতের কী করা উচিত সেই প্রসঙ্গে।

সংলাপটির ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তা ঝড় তুলেছে। সেখানে সদগুরু পরিষ্কারভাবে বলেছেন, ‘পেছনের দরজা দিয়ে কেউ আপনার বাড়িতে ঢুকতে চাইলেই তো আপনি ঢুকতে দিতে পারেন না।’

“আর যারা ইনক্লুসিভনেস নিয়ে বড় বড় কথা বলেন, তারা তো তাহলে বাংলাদেশকে ভারতের একটা ইউনিয়ন টেরিটরি হিসেবে যুক্ত করে নিলেই পারেন। তাহলে আর একই দেশের ভেতর এখানে-সেখানে যাতায়াতে কোনও অসুবিধা থাকে না। আপনারা কী এরজন্য তৈরি আছেন? ভারত কিন্তু (বাংলাদেশকে নিজের টেরিটরি বানানোর জন্য) তৈরি আছে.”

ভারতের আজ্ঞাবহ এবং অনুগ্রহে টিকে থাকা নৈশ ভোটের সরকারের কারণেই ভারতের মিডিয়ায় এমনকি তাদের সংসদে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব নিয়ে এমন কটাক্ষ চলতেই থাকে। আমাদের রাষ্ট্র আর জাতীয় অহমিকা এই দখলদার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় যেনতেন ভাবে টিকে থাকার বাসনায় ভুলুণ্ঠিত করে দিয়েছে। সদগুরুর এই কথাটাই দিল্লির সাউথ ব্লকের আকাঙ্খা। এর আগেও বিজেপির নেতারা এমন কথাই বলছে এখন তারা সামাজিক পরিমণ্ডলে এমন কথাবার্তা বলা শুরু করেছে।

হে বাংলাদেশবাসী, বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্রকে টিকিয়ে রাখতে হলে আওয়ামী ফ্যাসিবাসকে পরাস্ত না করে উপায় নেই।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Add comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *