Want to get latest blog from Pinaki Bhattacharya?
We will send you emails!
Subscribe!

Actually we will not spam you and keep your personal data secure

July 11, 2020

In Bangladesh, police, Rapid Action Battalion (RAB) and Directorate General of Forces Intelligence (DGFI) have their dedicated cyber security cells. These cells rarely work to ensure online security of these security agencies. The main job of the cells is to track down the online critics and act against them. They troll the critics online and look for ways to sue them, under the controversial Digital Security Act. Sometimes, they call some critics to their offices and threaten them of ‘severe actions’ if they do not stop their activities targeting the government.

Sheikh Hasina-led government alleges that those who oppose the regime spread rumours or fake news on sensitive issues, largely in attempt to trouble the government. During the 2018 fraudulent general election in Bangladesh, Twitter and Facebook deactivated some fake IDs after notifying that they were created and operated by some groups “associated with the government”, largely to spread anti-opposition propaganda. An official of the PMO picked up some Awami League activists and set up an online team, named C P Gang, which was assigned to abuse those who opposed or criticised the government. They called the opposition “Chhagu or goat”. And, “Go, fuck a goat” was their favourite slogan.

DGFI has an IT cell. This cell uses a third party to target the Facebook IDs of the critics of the government. They hack the Facebook IDs and email accounts of the anti-government groups or individuals. However, you cannot call it classical hacking. DGFI and some other government agencies can overhear or read people’s conversations or exchanged text messages on mobile phones. They can even record the conversations. After the IT cell of DGFI targets someone, it sends a request to Facebook or Google to send the Recovery Code to the mobile of the person. When Facebook or Google sends the code the IT cell people easily intercepts it. Later, they take control of the Facebook ID or email of that person, using that code. IT minister of Sheikh Hasina Mostafa Jabbar admitted in a TV interview that pro-government groups monitor and hack Facebook IDs of those who oppose the government. Interestingly, the IT cell commits cyber crimes to stage the drama of curbing cyber crimes.

The IT cell of DGFI creates many fake Facebook IDs. Then they use those IDs to post thousands of identical comments as spamming under the Facebook statuses of anti-government activists and human rights campaigners.

Some days ago, Nobel, a popular young singer of Bangladesh wrote in a Facebook post that none has composed or sung a good song in the country in the past decade. “I can teach the legend singers of the country how to sing,” he said.

The cyber crime unit of Bangladesh threatened Nobel on Facebook. Then, they called Nobel to their office where he was forced to issue an apology. So, police will track you down and threaten you if you say that poems of Rabindranath Tagore are not that impressive. In Bangladesh, you will be able to display or sell your book only after police read and take a decision on it. It’s the police who are monitoring and controlling the society and State in Bangladesh. They are even monitoring and controlling the creation of art and literature. I think even North Korea has not turned a state as authoritarian as Bangladesh. Sheikh Hasina-built Bangladesh is certainly a role model for many countries around the world.

Click here to read the original Facebook post

বাংলাদেশে পুলিশ, র‍্যাব আর মিলিটারি ইন্টেলিজেন্স ডিজিএফআইয়ের সাইবার সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট আছে। সাইবার সিকিউরিটি নিশ্চিত করার চাইতে এরা মূলত অনলাইনে সরকার বিরোধীদের দমন করে। তাদের নিয়ে ট্রল করে। তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে মামলা করার ছুঁতা খুঁজে। আবার কাউকে কাউকে সরাসরি ডেকে নিয়ে ধমক বা হুমকি দেয়।

যদিও হাসিনা সরকার অভিযোগ করে যে সরকারবিরোধীরা গুজব ছড়ায়, কিন্তু গত নৈশ ভোটের সময়ে প্রধানমন্ত্রীর অফিসের এক কর্মকর্তার নেতৃত্বে ফেইসবুক আর টুইটারে ফেইক আইডি তৈরি করে বিরোধী দলের বিরুদ্ধে সংগঠিত ভাবে কুৎসা ও গুজব রটনার জন্য ঘোষণা দিয়েই ফেইসবুক আর টুইটার বেশ কিছু আইডি বন্ধ করে দিয়েছিলো। প্রধানমন্ত্রীর অফিসের এই কর্মকর্তার নেতৃত্বেই বাংলা অনলাইনে কুখ্যাত সিপি গ্যাং নামে আওয়ামী লীগের গালিবাজ গ্রুপ তৈরি করা হয়। এরা সরকার বিরোধীদের “ছাগল বা ছাগু” বলে সম্বোধন করতো। এবং এদের শ্লোগান ছিলো “গো ফাক এ গৌট”।

ডিজি এফ আইয়ের একটা আই টি সেল আছে। সেখানে থার্ড পার্টি সরকারবিরোধীদের ফেইসবুক আইডি, ই-মেইল হ্যাক করা হয়। এটা অবশ ক্লাসিক্যাল অর্থে হ্যাকিং নয়। এটা এক ধরণের নিম্নস্তরের জোচ্চুরি। ডিজিএফআই সহ সরকারি কয়েকটি সংস্থার বাংলাদেশের জনগণের মোবাইলের আলাপ ও ক্ষুদে বার্তা শুনতে ও পড়তে পারে ও প্রয়োজনে রেকর্ড করতে পারে।

ডিজিএফআইয়ের আইটি সেল ফেইসবুক গুগলকে তাদের টার্গেট ব্যক্তির মোবাইলে রিকাভারি কোড পাঠানোর অনুরোধ করে। ফেইসবুক বা গুগল মোবাইলে সেই রিকাভারি কোড পাঠালে তা পড়ে নিয়ে সেই কোড ব্যবহার করে তারা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির আইডি বা ই-মেইলের কর্তৃত্ব তারা নিয়ে নেয়। হাসিনার আই টি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার নিজেই এক টিভি ইন্টারভিউয়ে স্বীকার করেছেন যে সরকারের লোকজন বিরুদ্ধ মতের লোকজনের ফেইসবুক আইডি মনিটর ও হ্যাক করে। কৌতকুকর হচ্ছে, সাইবার অপরাধ করেই তারা সাইবার অপরাধ দমনের নাটক করে।

ডিজি এফ আইয়ের আইটি সেল ফেইক আইডি তৈরি করে। সেই ফেইক আইডি দিয়ে সরকার বিরোধী অ্যাক্টিভিস্ট, মানবাধিকার কর্মীদের ফেইসবুক স্ট্যাটাসের নিচে হাজার হাজার একই ধরণের কমেন্ট করে স্প্যামিং করা হয়।

কয়েকদিন আগে বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় তরুণ গায়ক নোবেল তার ফেইসবুকে লিখেছিলো, বাংলাদেশে গত দশ বছরে কোন ভালো গান তৈরি হয়নি, আমি এই দেশের লেজেন্ড গায়কদের গান শেখাতে পারবো।

এই নোবলেকে পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি ইউনিট থেকে ফেইসবুকেও প্রকাশ্যে হুমকি দেয়া হয় এবং পরে নোবেলকে তাদের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে মাফ চাইতে বাধ্য করা হয়। এর অর্থ হচ্ছে, আপনি যদি বলেন রবীন্দ্রনাথের কবিতা কিছু হয় নাই, তাহলে পুলিশ আপনাকে ডেকে নিয়ে শাসিয়ে দেবে। এই পুলিশ একুশের বই মেলায় প্রকাশিত বই পড়ে রায় দেয় এই বই মেলায় বিক্রি হতে পারবে কী পারবে না।

একজন পুলিশ অফিসার কোনটা ঠিক বা বেঠিক মনে করছে সেইটা দিয়ে সমাজ, রাষ্ট্র এমনকি শিল্প সাহিত্য সৃষ্টিও নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। এমন অথরেটিটিয়ান রাষ্ট্র উত্তর কোরিয়াও বানাতে পেরেছে বলে মনে হয়না। সেই হিসেবে হাসিনা বাংলাদেশকে অনেক দেশের জন্যই রোল মডেল করে তুলেছেন।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Add comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *