Proposed joint committee aims to establish India’s control over Bangladesh’s foreign policy

India’s foreign secretary Harsh Vardhan Shringla recently made a flying visit to Bangladesh with a plan to set up an India-Bangladesh Supervisory Committee.

It’s pointless to set up another joint committee when under the chairmanship of the foreign minister of Bangladesh a joint economic commission is already operational.

India is aiming to use the proposed supervisory committee to convey its concerns and questions to the foreign minister of Bangladesh. Practically, they will be instructions that Bangladesh will be asked to follow. Interestingly, the foreign minister of Bangladesh evaded meeting the Indian foreign secretary.

The proposed committee would function virtually, which means none will have to travel to another country physically, for any meeting. It will help India conduct online meetings whenever it wants.
The main purpose of the committee would be to establish India’s control or authority over the foreign policy of Bangladesh, in the name of “supervising” relations. India will use this committee to issue diktats, and force Bangladesh to obey them.

Click here to read the original Facebook post

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা কেন বাংলাদেশ সফর করলেন? তিনি একটি যৌথ ভারত বাংলাদেশ সম্পর্ক তদারকি কমিটি গঠন করতে এসেছিলেন।

যেখানে, ইতিমধ্যেই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একটি যৌথ অর্থনৈতিক কমিশন কাজ করে, সেখানে একই পর্যায়ের আরেকটি যৌথ কমিটি গঠন করার কোনো যৌক্তিকতা নেই।

প্রস্তাবিত পরামর্শ কমিটির মাধ্যমে তারা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তাদের উদ্বেগ ও প্রশ্নের উত্তর চাইবেন এবং নিজেদের পরামর্শ যা কার্যত নির্দেশ তা প্রদান করবেন। লক্ষনীয় যে ইন্ডিয়ার পররাষ্ট্র সচিবের সাথে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাক্ষাৎ এড়িয়ে গিয়েছেন।

উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে, এই কমিটির কার্যক্রম ভার্চুয়ালি পরিচালিত হবে। যার ফলে, বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার জন্য কাউকে অন্য দেশে সশরীরে ভ্রমণ করতে হবে না। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ইন্ডিয়া যখনই ইচ্ছা কমিটির বৈঠক আহ্বান করতে সক্ষম হবে।

এই কমিটির উদ্দেশ্য হচ্ছে “সম্পর্ক তদারকি” করা; বস্তুত এর অর্থ হলো বাং লাদেশের পররাষ্ট্রনীতির উপরে ইন্ডিয়ার নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা। যখনই ইচ্ছা এবং যে কোনো বিষয়ে নির্দেশ প্রদানের মাধ্যম হিসাবে এই কমিটিকে তারা ব্যবহার করবে।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Share

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Feeling social? comment with facebook here!

Subscribe to
Newsletter