Want to get latest blog from Pinaki Bhattacharya?
We will send you emails!
Subscribe!

Actually we will not spam you and keep your personal data secure

July 11, 2020

The term of “Rajakar” represents the image of a pious Muslim to the new generation in Bangladesh. Usually a Rajakar is identified as an Islamic scholar, having a long flowing beard, wearing cap and with surma applied in his eyes. The Rajakar force or Rajakar Bahinee was founded by Pakistan government to support the Pakistani military in all ways possible. The Liberation War fighters fought hard against the Pakistani Army and Rajakar force and snatched the victory.

On June 1, 1971, Gen Tikka Khan promulgated East Pakistan Rajakar Ordinance and converted the Ansar Force into Rajakar Force. On September 7, the defence ministry of Pakistan recognised Rajakar force as part of Pakistan Army. Members of Rajakar force were trained paramilitary personnel. They used sophisticated weapons, had good uniform. They were salaried and used to get rations like other regular military personnel. Perhaps some joined Rajakar force with some political commitment. But this is a fact that many jobless poor men joined the force just to be able to have a regular income.

The following photo, shot in Dhaka on September 13, 1971, was published in a Pakistani national daily 59 years ago. It shows, the members of the Rajakar force, at the completion of their professional training, are dismantling and again assembling sten guns, just before they were sent out on their first assignment.

Take a look at these Rajakar men well. They do not have beard. They are not wearing pajama-punjabi or cap. All photos of Rajakar force show that they used to wear military uniform like any other regular paramilitary personnel. I have seen a few photos of Rajakar members in lungi and shirt. But I have not seen any photo of the men wearing Islamic cap and beard. So, there is justification to raise the question why an Islamic dressing style is attached to Rajakar force, why in movies, dramas and cartoons we continue to see a Rajakar invariably as an Islamic character?

In an Indian strategy, in the Liberation War, the Pakistani side, including Rajakar Bahinee, was identified as an Islamic force. And, the Liberation War was presented as a fight between Islam and secularism, in a mischievous and vile attempt to denigrate the religion. The Liberation War and Islam were never in conflict with each other. In fact, the war derived its power from Islam. In my book of “Muktijuddher Boyane Islam” I presented some related information. I hope, the new generation will learn how to know the truth, find out the unbiased facts of the Liberation War, by discarding all other imposed false narratives.

Click here to read the original Facebook post

বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের কাছে “রাজাকার” শব্দটা যে চিত্রকল্প তৈরি করে তা একজন পরহেজগার মুসলমানের ছবি। দাড়ি টুপি পরিহিত, চোখে সুরমা লাগানো একজন আলেম মুসলমানকেই রাজাকার হিসেবে চিত্রিত করা হয়েছে।

এই রাজাকার বাহিনী গঠিত হয়েছিলো পাকিস্তান সরকারের উদ্যোগে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা জন্য। ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি বাহিনী এবং রাজাকার বাহিনীর সাথে মরণপণ যুদ্ধ করেই মুক্তিযোদ্ধারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলো।

১৯৭১ সালের ১ জুন জেনারেল টিক্কা খান পূর্ব পাকিস্তান রাজাকার অর্ডিন্যান্স জারি করে আনসার বাহিনীকে রাজাকার বাহিনীতে রূপান্তরিত করেন৷ পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ৭ সেপ্টেম্বর জারিকৃত অধ্যাদেশে রাজাকার বাহিনীর সদস্যদের সেনাবাহিনী সদস্যরূপে স্বীকৃতি দেয়৷ রাজাকার বাহিনী ছিলো প্রশিক্ষিত প্যারা মিলিটারি বাহিনী। অনেক ক্ষেত্রেই তারা উন্নত অস্ত্রে সজ্জিত ছিলো, তাদের ইউনিফর্ম ছিলো, বেতন ছিলো এবং সামরিক সদস্যদের মতো রেশনও ছিলো।

রাজনৈতিক কমিটমেন্ট নিয়ে হয়তো কেউ কেউ রাজাকার বাহিনীতে নাম লিখিয়েছিলো। কিন্তু বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই দরিদ্র কর্মহীন যুবকেরা রোজগারের আশায় দলে দলে রাজাকার বাহিনীতে ঢুকেছিলো।

নীচের এই ছবিটি ১৩ সেপ্টেম্বর ১৯৭১ এর, পাকিস্তানের জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত ছবি। সেখানে দেখা যাচ্ছে রাজাকার বাহিনীর সদস্যরা তাদের প্রশিক্ষণ শেষে দায়িত্ব পাবার আগের মুহুর্তে স্টেনগান খুলে আবার জোড়া লাগাচ্ছে। এই প্যারা মিলিটারিদের মুখে কি দাড়ি, পরনে পায়জামা পাঞ্জাবী আর মাথায় ইসলামী টুপি আছে? নেই। রাজাকার বাহিনীর সদস্যদের যত ছবি পাওয়া যায় তারা প্রায় সকলেই সামরিক পোশাক পরিহিত প্যারা মিলিটারি। মাঝে মাঝে লুঙ্গি শার্ট পরিহিত কিছু রাজাকার বাহিনীর ছবি দেখা যায়। কিন্তু এখন পর্যন্ত দাড়ি টুপি ওয়ালা রাজাকার বাহিনীর সদস্যদের ছবি আমি দেখিনি। তাহলে এই প্রশ্ন করা সঙ্গত, কেন ইসলামী পোশাকের সাথে রাজাকার চরিত্রটাকে মিলিয়ে দেয়া হলো? কেন সিনেমা, নাটকে, কার্টুনে, চিত্রকল্প রাজাকার বলতেই একজন ইসলামী চরিত্রকে উপস্থাপন করা হলো?

এটা করাই হয়েছে মুক্তিযুদ্ধকে ইসলামের সাথে সেক্যুলারিজমের ফয়সালা হিসেবে দেখার ভারতীয় প্রজেক্টের বাস্তাবায়ন হিসেবে। মুক্তিযুদ্ধকে ইসলামের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে ইসলামকে হেয় করার কুবাসনা থেকে।

মুক্তিযুদ্ধ আর ইসলাম পপস্পরবিরোধী কোন প্রপঞ্চ নয়, বরং ইসলাম থেকে শক্তি নিয়েই আমাদের মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছিলো। মুক্তিযুদ্ধের বয়ানে ইসলাম বইয়ে আমি তার কিছু তথ্য আর উপাত্ত তুলে ধরেছিলাম। আশা করি ইতিহাসের ধুলোকালি সরিয়ে আমাদের তরুণ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে নির্মোহভাবে পাঠ করতে শিখবে।

লেখাটির ফেইসবুক ভার্সন পড়তে চাইলে এইখানে ক্লিক করুন

Add comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *